সুদিনের প্রতি

তাসীন

আমাদের জীবনীশক্তি আজ ক্ষীন হয়ে আসছে,
আমরা ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছি গভীর অতলে।
আমাদের মৃত্য আজ উদ্যম নৃত্য নাচছে,
আমরা আজ পড়ব কোন মহাশক্তির মহাকতলে?

আমাদের যৌবন আজ নিশুতি আঁধারে নিমজ্জ্বিত-
যেমনটা জোৎস্নার পড়ের হিমাংশু।
আমাদের হৃদয় আজ তিক্ত বিষাক্ত,
আজ উদীতহীন নবীনদের প্রত্যাশিত স্বপ্নাংশু।

আমরা আজ ঘোর নিদ্রায় নিদ্রীত-
ঠিক যেন দৈত্য কুম্ভকর্ণ।
আমরা আজ সমস্যার ব্যাধিতে মোড়া,
বিচিত্র আমাদের বর্ন।
আমাদের দৃঢ়তা আজ নড়বড়ে,
যেমন পাতলা বাঁশের কঞ্চি।
আমরা নমনীয়তার চাদরে ঢাকতে থেকে
শেষ করেছি সব দক্ষতার সঞ্চি।

আমরা আজ বন্ধুত্বহীন
যা দেখা যায় তা সবই বাইরের খোলস।
বৃত্তের বাইরে না বেরোতে বেরোতে আজ আমরা ভিষন অলস।

আমাদের মামুলি সমস্যার সমাধান করতে করতে
আজ আমরা জরাজীর্ন
অন্তঃদ্বন্দে লড়তে লড়তে আমাদের প্রান আজ শীর্ন।
আমরা শুধু খুঁজি একটুখানি শান্তি।
তবে প্রায় সময়েই বিফল হয়ে চোখে ভাসে এক ভ্রান্তি।

মর্তলোকে আজ শুধু মরনের ছায়া
কে ভঞ্জিবে আজ এই মৃত্যুদেবের কায়া ?
জানি আমরাই,তাই ভাঙিনা গড়ে উঠি দ্বিগুন তেজে,
আমাদের মাঝে আবার উঠবে এক ঝড়,
যে ঝড়ে ভাঙবে সকল দূড়াশা মরমর।
তাই ব্যার্থ চিত্তে বারবার সেইদিনটির প্রতিই চিঠি লিখি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here