অপেক্ষা

সিফাত হাছান সুমাইয়া

সেবার বৈশাখের কোন এক সন্ধ্যায় আমি যখন বুঝতে পারি
তোমায় অনেক ভালবাসি,
সেই থেকে অপেক্ষা করে আছি, এই বুঝি তুমিও,
ভালবাসবে আমায়।

বড্ড তুমি পাগল মেয়ে আমি,
হাজার অজুহাতের ছলে একটাই প্রত্যাশা
যাতে তুমি পাশে থাকো।

জানো, মনে মনে কত রাগ, কত অভিমান পুষে রেখেছি;
আমার একটাই অপেক্ষা,
তুমি সব অভিমান ভুলিয়ে আমায় ভালবাসবে।
তুমি, বড্ড মায়ায় ভরা, তোমার মায়ায় আচ্ছন্ন আমি,
তোমার মায়াবী মুখ পানে তাকিয়ে সব কষ্ট, সব বিষাদ
আর জমে থাকা অভিমান আমার জলে যায়।

কত ব্যস্ত পথ ক্লান্ত হয়ে একা হেঁটে বেড়িয়েছি
আর,
অহর্নিশ অপেক্ষায় থেকেছি এই ভেবে
হয়তো, তুমি পাশে এসে দাঁড়াবে,
আর, আমার ক্লান্ত মুখে স্বস্তির হাঁসি নেমে আসবে।
কতবার মনে হয়েছে, হঠাৎ তুমি পেছন থেকে
আস্তে করে বলবে,
“বড় ভালবাসি তোমায়।’’

কিন্তু না, তুমি বলোনি; তাকিয়ে থাকি তোমার মুখে,
নাহ! তোমার ঠোঁট তো নড়েনি।
নিঃসঙ্গভাবে বাড়ির দিকে চলে আমি,
আর আমার কানে বাজতে থাকে
অন্য কোথাও তোমার ভালবাসা নিবেদন।

টিকটিক করে চলে যাচ্ছে সময়
আমি অপেক্ষা করেই যাচ্ছি,
কতগুলো রাত, কতগুলো সময়, কতগুলো ভাললাগা
এই অপেক্ষার গাড়িতে করে পাড় হয়ে যাচ্ছে
কিন্তু ফিরতে গাড়িতে তুমি আসলে না আমার কাছে।

আমি জানি, আমার এ সব কথাই বৃথা
এর ফল তুমি যা দিবে তা হবে বিষাক্ত তিতা,
হয়তো সময়ও হবে না শোনার।

কিন্তু, এত কিছুর পরেও আমার ক্লান্তি আসে না,
সেই বৈশাখের সন্ধ্যা থেকে আজ অব্ধি,
শুধু অপেক্ষাই করে গেলাম,
তবে বড্ড জানতে ইচ্ছে হয়,
কোথায় শেষ হবে আমার অপেক্ষা?
এই অপেক্ষার শেষ বিন্দুতে,
পাবো তো তোমার দেখা?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here